fbpx

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি- মানবিক বিভাগ

তোমারা যারা এবার মানবিক বিভাগ থেকে এইচ এস সি পরীক্ষা দিচ্ছ, তারা শিক্ষা জীবনের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ সময়টা এখন পার করছ। প্রায় সকল ছাত্র-ছাত্রীর স্বপ্ন থাকে দেশের নামকরা একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে অনার্স পড়ার। দিন শেষে কে, কোথায়, কি নিয়ে পড়ালেখা করবে তা নির্ধারণ করবে হাতে পাওয়া এই কয়েক মাসের সময়। তাই প্রয়োজন সঠিক দিক নির্দেশনা আর অধ্যবসায়। এর কোন বিকল্প নেই।  

কিভাবে প্রস্তুতি শুরু করবে তা বলার আগে নিজের জীবনের একটা ঘটনা শেয়ার করি-
২০০৮ সালে এইচ এস সি পরীক্ষার পর আমার লক্ষ ছিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া, আর সে লক্ষে ভর্তি হয়ে যাই বুয়েট ভর্তি কোচিং এ। পড়ালেখায় মোটামুটি ভাল ছিলাম, তবে বুঝতে পারলাম এত প্রতিযোগীতার মধ্যে টিকতে হলে আরো বেশি পরিশ্রম করতে হবে। দিনে ১৪-১৬ ঘন্টা তখন কোচিং এর পড়া, ম্যাথ প্র্যাক্টিস, মডেল টেস্ট দিতাম। দেড় মাস পর যখন রেসাল্ট আসলো ৪.৫ তখন নিজেই বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। বুয়েট তো দূরে থাক কোন প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফর্ম কেনার যোগ্যতা ছিল না। সে সময় শুধু বিজ্ঞানেই ৫.০০ পেয়েছিল ১১ হাজারের উপরে। সবাই বলেছিল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া আমার আর কোথাও জায়গা নেই। কিন্তু আমি নিজের উপর আস্থা হারাই নি। আর যাই হোক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বো এটাই তখন লক্ষ ছিল। আমি আমার অধ্যবসায় চালিয়ে গিয়েছিলাম এবং দিন শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই অনার্স ও মাস্টার্স শেষ করে এখন একটা ইন্টারনেশনাল অর্গেনাইজেসনে চাকরী করছি। আমার সেই বাজে রেজাল্ট আমাকে আটকাতে পারে নি। তোমাদের শুধু একটা কথাই বলব, যত কঠিন সময় আসুক নিজের উপর আস্থা রাখো আর লেগে থাকো। কোন একদিক দিয়ে সফলতা আসবেই।

এবার আসি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতির কথায়-

সাধারণ প্রস্তুতিঃ
প্রথমে কিছু বিশ্ববিদ্যালয় কে টার্গেট করে তাদের আর্টস ফ্যাকাল্টির প্রশ্ন ব্যাংক কিনে নাও। প্রতিদিন ২টা করে টেস্ট দাও, অবশ্যই ঘড়ি ধরে দিবে। মোটামুটি ১০টা টেস্ট দেয়ার পর তুমি নিজেই বুঝতে পারবে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে কি ধরণের প্রশ্ন আসে এবং তার জন্য কেমন প্রস্তুতি নেয়া উচিৎ। তাছাড়া তোমার কোন কোন বিষয়ে দুর্বলতা আছে সেটাও অনেকটা বুঝতে পারবে। যেহেতু সবার পছন্দের তালিকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় থাকে তাই এদের বিগত বছরের প্রশ্ন ব্যাংক দিয়ে প্রস্তুতি শুরু কর।

বাজারে জয়কলি প্রকাশনীর প্রশ্ন ব্যাংক, জ্ঞানকোষ আন্তর্জাতিক ও বাংলাদেশ, মডেল টেস্ট ইত্যাদি বিষয় ভিত্তিক গাইড বই আছে।
এছাড়া হালদা প্রকাশনী, নেক্সাস প্রকাশনী, প্রক্টর প্রকাশনী, রয়েল গাইড প্রকাশনী, ইউনি এইড প্রকাশনী সহ বেশ কিছু প্রকাশনীর সাজেশন সহ ভাল মানের গাইড বই পাবে ভর্তি প্রস্তুতির উপর।

প্রশ্ন ব্যাংক ও গাইড বই দেখতে নিচের বাটনে ক্লিক কর-

বিশ্ববিদ্যালয় চয়েসঃ
অবশ্যই তিনটির বেশি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিবে এবং সেভাবেই প্রস্তুতি নিবে। কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয় তোমার পছন্দের তালিকায় রাখবে তার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে পারো-
তুমি যে বিষয়ে পড়তে আগ্রহী তা কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে> এদের মধ্যে পড়ালেখার মান ভাল কোন গুলোতে > কোন সেশন জট আছে কিনা > আবাসিক অবস্থা ও বর্তমান রাজনৈতিক পরিবেশ কেমন?
তোমার পরিচিত যারা সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে তাদের থেকে বা ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপ থেকে আপডেট তথ্য নিতে পারবে।

বিষয় ভিত্তিক প্রস্তুতিঃ
আর্টস ফ্যাকাল্টির ভর্তি প্রশ্নে মূলত বাংলা, ইংরেজী, অর্থনীতি, সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন আসে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ভেদে IQ ও গানিতিক যুক্তি ভিত্তিক কিছু প্রশ্ন থাকতে পারে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় সকল ইউনিটেই ম্যাথ ও বুদ্ধিমত্তা বা IQ থেকে প্রশ্ন করা হয়। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এই ম্যাথ ও IQ অংশের জন্য ভালো মানের দুটি বই পড়লেই যথেষ্ট। General Math-এর জন্য সবচেয়ে ভালো Math বই হলো “PROCTOR COMPETITIVE MATH” আর IQ-এর জন্য সবচেয়ে ভালো IQ বই হলো “PROCTOR IQ”. এই বই দুটো থেকে বেশির ভাগ প্রশ্নই হুবহু কমন পাবে।

বাংলা প্রস্তুতিঃ
বাংলা প্রস্তুতির জন্য পাঠ্যবইয়ের প্রতিটা গদ্য ও পদ্যের মূল আলোচ্য বিষয়, লেখক পরিচিতি, গদ্যে ব্যবহৃত চরিত্রাবলী পড়তে হবে। এটা তোমার এইচ এস সি পরীক্ষার প্রস্তুতিতেও সহায়ক হবে। ব্যকরণের জন্য নবম-দশম শ্রেনীর ব্যাকরনের সিলেবাসই যথেষ্ঠ। তবে সহায়ক বই হিসেবে-
বাংলা সাহিত্য সম্পর্কে জানতে হুমায়ন আজাদের ‘লাল নীল দীপাবলি’ বইটি অবশ্যই পড়বে।
ব্যাকরণের জন্য নেক্সাসের- “একুশে বাংলা ব্যাকরণ” বইটি পড়তে পারো, এই বইটি থেকে অনেক প্রশ্ন কমন পরে। ‘নেক্সাস বাংলা বিরচন’ বইটি থেকে লিখিত পরীক্ষার জন্য অনেক প্রশ্ন কমন পাবে।

ইংরেজী প্রস্তুতিঃ
ইংরেজীতে মূলত চারটি অংশ থেকে প্রশ্ন করা হয়- Grammar, Vocabulary, Comprehension, Written
Grammar প্রস্তুতির জন্য Apex English বইটি থেকে প্রস্তুতি নিতে পারো। গ্রামারের নিয়ম গুলো জানার পাশাপাশি প্রশ্ন কমন পেতে হেল্প করবে। NEXUS Grammar বইটি গ্রামার বেসিক বোঝার জন্য অনেক বেশী সহায়ক হবে।
Comprehension প্রস্তুতির জন্য জয়কলি প্রকাশনীর- English Bichitra, নেক্সাস প্রকাশনীর- NEXUS English Q Bank বই গুলো অনুসরণ কর।
Vocabulary খুবই গুরুত্ব পূর্ণ একটি অংশ। প্রস্তুতির জন্য Saifurs’ Students Vocabulary বইটি অনুসরন কর। তাছাড়া NEXUS Vocabulary বইটি থেকেও প্রশ্ন কমন পরে থাকে।

সাধারণ জ্ঞান প্রস্তুতিঃ
প্রস্তুতির জন্য অবশ্যই বিগত বছরের সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্নগুলো পড়তে হবে। বিসিএস প্রিলির সাধারণ জ্ঞানের বিগত বছরের প্রশ্ন গুলোও দেখবে কারন প্রতি বছর ২-৩ প্রশ্ন কমন পরে। সহায়ক বই হিসেবে যে সকল বই পড়তে পারো-
জয়কলি প্রকাশনীর- জ্ঞানকোষ আন্তর্জাতিক ও বাংলাদেশ, হালদা প্রকাশনী- বি ও ডি ইউনিট ভর্তি সহায়িকা।
এছাড়া বিসিএস সাধারণ জ্ঞান প্রস্তুতির জন্য যে সকল বই আছে সেগুলো ও অনুসরণ করতে পারো, তবে আগে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক বই গুলো শেষ করাই ভাল।

যেভাবে প্রস্তুতি শুরু করবেঃ
এখন যেহেতু হাতে সময় আছে, এইচ এস সি এবং ভর্তি প্রস্তুতি দুটোর জন্য পড়। প্রথমে তোমার পছন্দ মত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নব্যাংক নিয়ে কিছু টেস্ট দাও । প্রশ্নের ধরন, তোমার দুর্বলতা কোথায় সে সম্পর্কে ভাল ধারণা পাবে। ইংরেজী প্রশ্ন কিছুটা কঠিন হয় তাই এখন থেকেই অল্প করে প্রস্তুতি নেয়া শুরু কর। প্রতিদিন অন্তত তিন ঘন্টা সময় দাও ভর্তি প্রস্তুতির জন্য। এইচ এস সি পরীক্ষার পর একেবারে আদাজল খেয়ে নামো। বিষয় ভিত্তিক বই কিনে পড়। প্রস্তুতির শেষ দিকে মডেল টেস্ট দাও। এবার ভর্তি কোচিং অনলাইন হবে নাকি অন্য কোন পদ্ধতিতে হবে সেটা সময় বলে দিবে। তবে তুমি তোমার প্রস্তুতি চালিয়ে যাও।

ভর্তি প্রস্তুতির সকল প্রশ্ন ব্যাংক ও গাইড বই দ্রুত হোম ডেলিভারি পেতে নিচের বাটনে ক্লিক কর। তোমার প্রয়োজনীয় বইগুলো বাংলাদেশের যেকোন প্রান্তে মাত্র ২ দিনে পৌছে দেবার গ্যারান্টি দিচ্ছি।

পোস্টটি প্রয়োজনের সময় খুঁজে পেতে শেয়ার করে নিজের ওয়ালে রেখে দাও। আর তোমাদের অন্যান্য বন্ধুদের ট্যাগ করে ওদের দেখার সুযোগ করে দাও এবং একসাথে প্লান কর ভর্তি প্রস্তুতির। দেখবে এটা তোমাকে ভাল প্রস্তুতি নিতে আরো বেশি হেল্প করবে। শুভ কামনা রইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *