fbpx

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি! কখন, কিভাবে শুরু করবে?

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অফিস, বাজার, শিক্ষা-প্রতিষ্টান সহ সব কিছুই প্রায় বন্ধ এবং অনিশ্চয়তার মধ্যে আছে। সব থেকে বেশি অনিশ্চয়তার মধ্যে আছে এবারের এইচ এস সি পরীক্ষার্থীরা। প্রায় তিন মাস ধরে পরীক্ষা কার্যক্রম স্থগিত। কবে শুরু হবে সেটাও কেউ নিশ্চিৎ ভাবে বলতে পারে না।  
তবে একটা বিষয় খুব নিশ্চিৎ ভাবে বলা যায়। তোমরা যারা এবারের পরীক্ষার্থী, লক ডাউনের এই সময়টা তোমাদের কারো জন্য বিশাল এক সুযোগ আবার কারো জন্য এক মহা দুর্যোগ নিয়ে আসবে। নাহ, এইচ এস সি পরীক্ষা সবাই ভাল দিবে, সমস্যাটা হবে ভার্সিটি ভর্তি পরীক্ষাতে। কারণ এখন হাতে অনন্ত সময় পেলেও ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য খুব বেশি সময় পাবে না, বরং গতবারের থেকে হাতে অনেক কম সময় থাকবে। 

শিক্ষা জীবনের সব থেকে গুরুত্বপূর্ন সময়টা এখন তোমরা পার করছ। কারণ জীবনে কি হতে চাও, বাকি জীবন কিভাবে কাটাতে চাও তার অনেকটাই নির্ভর করবে তোমরা কোন ভার্সিটিতে কি বিষয় নিয়ে পড়ালেখা করবে তার উপর। শেষ পর্যন্ত যেখানেই চান্স পাও লেখাপড়ার বাকিটা জীবন সেখানেই কাটাতে হবে। তাই যদি নিজের স্বপ্নকে সত্যি করতে এবং সঠিক দিকনির্দেশনা পেতে চাও, তবে বাকি লেখাটুকু সময় নিয়ে পড়। বোনাস হিসেবে আছে বিষয় ভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষার টিপ্স ও সাজেশন।

কখন থেকে প্রস্তুতি শুরু করব?
সাধারণত এইচ এস সি পরীক্ষার পরপরই সবাই প্রস্তুতি নেয়া শুরু করে, তবে এবার পরিস্থিতি সম্পূর্ণ আলাদা। পরীক্ষার সময় পার হয়েও প্রার আরো ৩ মাস হয়ে গেছে। তাই বসে না থেকে প্রতিদিনই অর্ধেকটা সময় এইচ এস সি পরীক্ষার প্রস্তুতি নাও আর বাকীটা সময় ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নাও। তুমি হয়ত শুধু সামনের পরীক্ষার জন্য পড়ছ আর বাকিটা সময় ইউটিউব দেখছ বা পাবজী খেলছ, তোমার বন্ধু ঠিকই তার সময়টা কাজে লাগিয়ে তোমার থেকে এগিয়ে যাচ্ছে।

কিভাবে শুরু করব?
শুরু করার সহজ উপায় হল বিগত বছরের প্রশ্ন ব্যাংক নিয়ে কিছু টেস্ট দেয়া। প্রত্যেকটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিট অনুযায়ী অথবা ‘ক’/’খ’/’গ’ ইউনিট অনুযায়ী একসাথে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন ব্যাংক কিনতে পাওয়া যায়। তোমার প্রয়োজনী প্রশ্ন ব্যাংক গুলো নিয়ে প্রতিদিন একটা বা দুটো প্রশ্ন সল্ভ কর। এতে তোমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন সম্পর্কে যেমন ধারণা পাবে তেমনি কিভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে সেটাও অনেকটা  বুঝতে পারবে। তাছাড়া প্রতি বছড় প্রায় ৩০% এর মত প্রশ্ন বিগত বছর হতে পুনরাবৃত্তি করা হয় তাই ভর্তি পরীক্ষায় কমন পেতে বিগত বছরের প্রশ্ন ব্যাংক অনেক বেশি কাজে দিবে।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন ব্যাংক দেখতে নিচের লিংকে ক্লিক কর-

বার্তি কিছু কি পড়তে হবে?
প্রশ্ন ব্যাংক ঘাটলেই অনেকটা পরিস্কার হয়ে যাবে তোমার কোন কোন বিষয়ে দুর্বলতা আছে। বিগত বছর গুলোতে দেখাগেছে  মোট পরীক্ষার্থীর মাত্র ১৯-২০% ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে এবং এর বড় কারণ ইংরেজীতে দুর্বলতা। তাই গ্রামারে তোমার দুর্বলতা থাকলে কিছু ভাল গ্রামারের বই, যেমন- Apex English, Barron’s TOEFL or Cliff’s TOEFL  এই বইগুলো পড়া উচিৎ। এই বইগুলোতে যে সব উদাহরণ দেয়া থাকে তা থেকে অনেক ক্ষেত্রেই ভর্তি পরীক্ষায় কমন আসে। আর অন্যান্য বিষয় ভিত্তিক প্রস্তুতির জন্য মূল বই থেকে বেসিক ক্লিয়ার করে নিলেই আপাতত চলবে। তবে সাধারণ জ্ঞানের জন্য কিছু বই আলাদা ভাবে পড়ার দরকার হতে পারে।

কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রস্তুতি নিব?
অনেকের ধারণা বিশ্ববিদ্যালয় চয়েসের ক্ষেত্রে জানতে চাইলে সবাই একবাক্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট/ ঢাকা মেডিকেল সাজেস্ট করবে। আসলে বিষয়টা এমন না। কে কোন বিষয়ে গ্রাজুয়েশন করতে চাও তার উপর অনেকটাই নির্ভর করে তোমার কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রস্তুতি নেয়া উচিৎ। অনেকের কাছে নিজের জেলা বা বিভাগের বিশ্ববিদ্যালয় সবার আগে অগ্রাধিকার পায়। বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা বা মানবিক শাখা থেকে কে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য কেমন প্রস্তুতি নিবে সে বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানতে নিচে লিংক দেয়া আছে। আপাতত বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা বা মানবিক শাখার জন্য সাধারন যে প্রশ্ন ব্যাংক গুলো আছে সেগুলো দেখলেই যথেষ্ঠ।

এখন কি করব?
বর্তমান পরিস্থিতি থেকে বোঝাই যায় বন্ধের সময় আরো বাড়বে। এখন তোমার কাজ এই সময়টাকে যতটা সম্ভব কাজে লাগানো। নিশ্চিত থাকো, এইচ এস সি পরীক্ষা দেবার পর ভর্তি প্রস্তুতির জন্য তেমন সময় পাবে না। তুমি যদি বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী হও আর ইঞ্জিনিয়ারিং বা মেডিকেলে ভর্তি হবার ইচ্ছা থাকে তবে বিগত বছরের মেডিকেল বা ইঞ্জিনিয়ারিং প্রশ্ন ব্যাংক নিয়ে কিছু টেস্ট দাও। তবে কেবল মেডিকেল বা বুয়েট নিয়ে পরে থাকলেই হবে না। তোমার আগ্রহ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে নজর রাখো। ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীরা পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা করে সে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন ব্যাংক নিয়ে প্রস্তুতি শুরু কর। যারা মানবিকে আছ তাদের জন্যেও একই সাজেশন।

ঠিক পোশালো না, আরো বিস্তারিত সাজেশন পেতে পারি?
এত অল্প লেখাতে সব কিছু জানানো সম্ভব না। বিজ্ঞান/ব্যাবসায় শিক্ষা/মানবিক যে যে বিভাগে আছ, তোমাদের কোন বিষয়ের উপর আগ্রহ বেশি, সে অনুযায়ী কোন বিশ্ববিদ্যালয় গুলো পছন্দের তালিকায় থাকতে পারে আর তার জন্য প্রস্তুতি কিভাবে নিবে সেটা জানতে নিচের লিংকে ক্লিক কর। নিজের উপর আস্থা রাখো আর দিক নির্দেশনা অনুযায়ি লেগে থাকো, সফলতা আসবেই।

One thought on “বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি! কখন, কিভাবে শুরু করবে?

  1. Nawshin Ibnath Logno says:

    I am a student of Viqarunnisa Noon College (science group ) .I am interested in Dhaka University IBA.Want some suggestions about it.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *